সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে এসে অধিনায়ক বদলালেও টস ভাগ্য বদলায়নি বাংলাদেশের। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও টসে হারলেন। ব্যাটিয়ের সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক ক্রেগ এভরাইন।

 

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৩ ওভারে ২৯ রান তুলে জিম্বাবুয়ে। ১০ বলে ১৭ রান করে মেহেদি হাসানের বলে চাকাভা ফিরেন। এরপর খুব একটা বেশি সুবিধা করতে পারেনি স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। ১৩ ওভারে ৬৭ রানে ৬ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। আগের দুই ম্যাচে অর্ধশতক করা সেকান্দর রাজা ফিরেন শূন্য রানে। তবে সপ্তম উইকেটে লুক জংওয়েকে সাথে নিয়ে রায়ান বুর্ল করেন ৩১ বলে ৭৯ রানের জুটি। নাসুম আহমেদের এক ওভারেই ৩৪ রান নেন বুর্ল। ২৮ বলে ৫৪ রান করা বুর্লের ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫৬ রান সংগ্রহ করে জিম্বাবুয়ে। প্রথম ওভারে মাত্র ৬ রান দেওয়া নাসুম দলীয় ১৫ তম ও নিজের দ্বিতীয় ওভারে বল করতে এসে খরচ করেন ৩৪ রান। যা টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে খরুচে ওভার।

 

জবাব দিতে নেমে প্রথম ওভারে ১৩ রান যোগ করা লিটনকে দ্বিতীয় ওভারে হারায় বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টিতে লাল-সবুজের জার্সিতে অভিষেক হওয়া তরুণ পারভেজ হোসেন ইমনও হতাশ করেন টাইগার ভক্তদের। নিজের অভিষেক ইনিংসে ৬ বলে ২ রান করেন ইমন৷ বরাবরের মতো ব্যর্থ এনামুল ও শান্ত। ১৩ বলে ১৪ করেন এনামুল। ২০ বল খেলে ১৬ রান করেন শান্ত। ৬০ রানে ৪ উইকেট হারানোর কর আফিফকে নিয়ে ৩৯ রানের একটি পার্টনারশিপ করেন মাহমুদউল্লাহ। ২৭ বলে ২৭ রান করে দলীয় ৯৯ রানে ফিরেন সাবেক অধিনায়ক রিয়াদ। পরের বলে জিম্বাবুয়েকে গোল্ডেন ডাক উপহার দেন এই ম্যাচে বাংলাদেশের অধিনায়কত্ব করা মোসাদ্দেক। মেহেদী হাসানকে নিয়ে আফিফের গড়া প্রতিরোধ বাংলাদেশকে স্বপ্ন দেখাতে শুরু করে জয়ের। তবে দলীয় ১৩৩ রানে ১৭ বলে ২২ রান করে বিদায় নেন মেহেদী।

 

শেষের ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের দরকার ছিলো ২০ রান। তবে জংওয়ের করা ওভারটিতে ৮ রানে বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা। এতে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে ১০ রানে জিতে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজও জিতলো জিম্বাবুয়ে।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১৫৬/৮ (চাকাভা ১৭, আরভিন ২৪, মাধেভেরে ৫, রাজা ০, উইলিয়ামস ২, শুম্বা ৪, বার্ল ৫৪, জঙ্গুয়ে ৩৫, ইভান্স ৫*, নিয়াউচি ১*; মুস্তাফিজ ৪-০-২২-১, মেহেদি ৪-০-২৮-২, মোসাদ্দেক ৪-০-২২-১, নাসুম ২-০-৪০-১, হাসান ৪-০-২৮-২, মাহমুদউল্লাহ ২-০-৮-১)

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৪৬/৮  (লিটন ১৩, পারভেজ ২, এনামুল ১৪, শান্ত ১৬, মাহমুদউল্লাহ ২৭, আফিফ ৩৯*, মোসাদ্দেক ০, মেহেদি ২২, হানান ৩, নাসুম ২*; ইভান্স ৪-০-২৬-২, নিয়াউচি ৪-০-২৯-৩, মাধেভেরে ২-০-১৪-১, রাজা ৪-০-২১-০, মাসারা ১-০-৫-০, উইলিয়ামস ২-০-১৬-১, জঙ্গুয়ে ৩-০-২৮-১)

ম্যাচসেরাঃ রায়ান বুর্ল ৫৪ (২৮)

সিরিজ সেরাঃ সিকান্দার রাজা (জিম্বাবুয়ে)


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন