ফুটবলের সকল কার্যক্রম থেকে নিজেদের সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশের প্রথম করপোরেট ক্লাব সাইফ স্পোর্টিং। নিজেদের প্রত্যাহার করে নিতে ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে(বাফুফে) চিঠিও দিয়েছে ক্লাবটি।

লিগে নিজেদের পারফরম্যান্স, হতাশা এসব নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করার কথা ছিলো সাইফ স্পোর্টিংয়ের। তবে শেষ পর্যন্ত তা স্থগিত করে দেশের প্রথম কর্পোরেট ক্লাবটি। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায় ফুটবল থেকেই নিজেদের গুটিয়ে নিতে চলছে দলটি।

সংস্থা সাইফ পাওয়ারটেকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার রুহুল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘প্রতিষ্ঠানের বোর্ড মিটিংয়ে সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে ফুটবলে আর থাকছে না সাইফ স্পোর্টিং। আমাদের মনে হয়েছে দেশের ফুটবলে আমরা আর সেভাবে অবদানটা রাখতে পারছি না। ফুটবলকে সামনে রেখে আমরা যে পরিকল্পনায় এগিয়ে ছিলাম সেটাও ঠিকভাবে বাস্তবায়ন হয়নি। ব্যবসায়িক ব্যস্ততা বেড়ে যাওয়ায় ফুটবল থেকে দূরে থাকার সিদ্ধান্ত।’

পাওয়ারটেকের পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত হয় শীর্ষ আরেক দল চট্টগ্রাম আবাহনী। ম্যানেজম্যান্ট আপাতত সে দলটিতে নজর দিতে চাই বলে জানা যায়। তবে ফুটবলে না থাকলেও দাবা ও অন্যান্য ক্রীড়া কার্যক্রমে সক্রিয় থাকবে কর্পোরেট ক্লাবটি।

২০১৭ সালে বিপিএলে উর্ত্তীন হয়ে দেশের প্রথম কর্পোরেট ক্লাবটি দেশের ফুটবল সমর্থকদের স্বপ্ন দেখান ফুটবল জাগরণের। বাংলাদেশ জাতীয় দলের জামাল ভূঁইয়াকে অধিনায়ক করে দল তারকা ভর্তি ফুটবলার নিয়ে দল গড়ে ক্লাবটি। তবে শিরোপা নামক সোনার হরিণটি অধরাই রয়ে যায় সাইফের।

এবারের বিপিএল ফুটবলে প্রথমবারের মতো তৃতীয়স্থান অর্জনের পরও মৌসুম শেষে অধিকাংশ ফুটবলার ধরে রাখতে ব্যর্থ হয় সাইফ। তাদের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও দল ছাড়ার গুঞ্জন ছিলো। সব মিলিয়ে হতাশা থেকেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি এমনটাই ধারণা করা হচ্ছে আপাতত।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন