পেসার ম্যাট হেনরি ও ট্রেন্ট বোল্টের অগ্নিঝরা বোলিংয়ে স্বাগতিক অষ্টেলিয়াকে মাত্র ১৯৫ রানে অলআউট করে সিরিজে ফেরার স্বপ্ন দেখতে থাকা কিউই সমর্থকদের স্বপ্নে জল ঢেলে দিলেন অজি স্পিনার এডাম জাম্পা। এই অষ্টেলিয়ান লেগীর স্পিন বিষে নীল হয়ে মাত্র ৮২ রানে গুটিয়ে যায় নিউজিল্যান্ড। যা অষ্টেলিয়ার বিপক্ষে তাদের দ্বিতীয় সর্বনিন্ম। এর আগে ওয়ালিংটনে অজিদের বিপক্ষে ৭৪ রানে অলআউট হয়েছিল কিউইরা।

সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডকে ১১৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতে নেয় অষ্টেলিয়া।

আগের ম্যাচের ন্যায় দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও অজি ব্যাটসম্যানদের পরিক্ষা নেন নিউজিল্যান্ড পেসাররা৷ কিউই বোলারদের দূর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ৫৪ রান করতেই ৫ উইকেট হারায় অষ্টেলিয়া। তবে ৬ষ্ঠ উইকেটে ম্যাক্সওয়েলকে সঙ্গী করে ৮৬ বলে ৪৯ রানের জুটি গড়েন স্মিথ। দুইজনের সাবধানী ব্যাটিংয়ে কোনো মতে তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছায় স্বাগতিকদের রান। ৫০ বলে ২৫ রান করে ম্যাক্সওয়েল সাজঘরে ফিরলে আবারো দ্রুত দুটি উইকেট হারায় অষ্টেলিয়া। ৯৪ বল খেলে ৬১ রানের ইনিংস খেলে স্মিথ যখন সাজঘরে ফিরেন তখন অজিদের দলীয় সংগ্রহ ১১৭ রান, নেই আট উইকেট। তবে মিচেল স্টার্ক ও জাম্পার ৩১ রানের জুটিতে ম্যাচে ফেরার আপ্রাণ চেষ্টা চালাতে থাকে অজিরা। জাম্পা ২১ বলে ১৬ রান করে আউট হওয়ার পর ক্রিজে আসেন অষ্টেলিয়ার ১১তম ব্যাটার হ্যাজলিউড। তাকে নিয়ে ৩৬ বলে ৪৭ রানের জুটি গড়েন স্টার্ক।

নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে স্কোরকার্ডে ১৯৫ রান যোগ করে অষ্টেলিয়া। স্টার্ক অপরাজিত থাকেন ৩৮ রানে, হ্যাজলিউড খেলেন ১৬ বলে ২৩ রানের ইনিংস।

১৯৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নামা নিউজিল্যান্ডের চারজন ছাড়া বাকি কেউ পারেনি দুই অঙ্কের ঘর স্পর্শ করতে। এতে করে মাত্র ৮২ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারীদের ইনিংস। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৭ রান করেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। বল হাতে নিউজিল্যান্ড ব্যাটিং লাইনআপে ধস নামান অজি লেগ স্পিনার এডাম জাম্পা। ক্যারিয়ার সেরা বোলিং রেকর্ড গড়ে ৩৫ রান খরচে নেন ৫ উইকেট স্টার্ক নেন দুটি।

বল ও ব্যাট হাতে দলের জয়ে অবদান রাখায় ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতেন বাঁহাতি পেসার মিচেল স্টার্ক৷


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন