বুধবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচ দিয়ে বাংলাদেশ স্পর্শ করতে যাচ্ছে দারুণ এক মাইলফলক। ১০তম দেশ হিসেবে ওয়ানডেতে ৪০০তম ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। তবে এই মাইলফলক স্পর্শ করার ম্যাচটি মোটেও সুখকর হতে যাচ্ছে না হয়তো বাংলাদেশের। কারণ আগের দুই ম্যাচে হেরে সিরিজ হারা বাংলাদেশের সামনে চোখ রাঙ্গাচ্ছে হোয়াইটওয়াশ।

সাল ১৯৮৬, ৩১ মার্চ এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে ইমরান খানের সঙ্গে টস করতে নেমেছিলেন গাজী আশরাফ হোসেন লিপু। যা ছিল বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ; প্রথম ওয়ানডেও।

এরপর কেটেছে ৩৬টি বছর নানান চড়াই-উতরাই পেরিয়ে বাংলাদেশ দল বর্তমানে ওয়ানডে ক্রিকেটে করে নিয়েছে শক্তিশালী অবস্থান।

আজ হারেরেতে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলতে নামবে নিজেদের ৪০০তম ওয়ানডে ম্যাচ। তবে গত পাঁচ সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইট ওয়াশ করা বাংলাদেশের মোটেও সুখকর হতে যাচ্ছে নিজেদের ৪০০তম ম্যাচটি। এবার হোয়াইটওয়াশ চোখ রাঙ্গাচ্ছে স্বয়ং বাংলাদেশকে। আজ শেষ ওয়ানডেতে হারলেই ২১ বছর পর জিম্বাবুয়েনদের কাছে ধবলধোলাই হবে বাংলাদেশ।

নিজেদের প্রথম ওয়ানডে’তে পাকিস্তানের কাছে হেরেছিলো বাংলাদেশ। তবে নিজেদের শততম ওয়ানডে ম্যাচে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে দেয় বাংলাদেশ। সে ম্যাচে জয়ের নায়ক ছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। যিনি আবার ছিলেন ৩০০তম ওয়ানডে ম্যাচে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক। প্রতিপক্ষ একই, ভারত। যদিও ২০১৫ বিশ্বকাপের সেই বিতর্কিত কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচটিতে ভারতের কাছে হারতে হয়েছিলো মাশরাফিদের। নিজেদের ২০০তম ওয়ানডেতেও সাকিবের নেতৃত্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছিলো টাইগাররা।

শততম ওয়ানডেতে ভারতকে হারিয়ে ক্রিকেটারদের উল্লাস।

নিজেদের ৪০০তম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ কি জিতবে নাকি হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পড়বে তা জানতে হলে আপাতত অপেক্ষায় থাকতে হবে আপনাকে।

এক নজরে ওয়ানডেতে বাংলাদেশঃ

ম্যাচঃ ৩৯৯
জয়ঃ ১৪৩
হারঃ ২৪৯
পরিত্যক্ত/ফল হয়নিঃ
জয়ের শতাংশঃ ৩৫.৮৪ %
অধিনায়কঃ ১৪
প্রতিপক্ষঃ ১৮

ওয়ানডে ক্রিকেটে হাজারের বেশি ম্যাচ খেলেছল একমাত্র ভারত। ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ১০০৮ টি ম্যাচ খেলেছে দলটি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা অষ্টেলিয়া খেলেছে ৯৬৬ ম্যাচ। জিম্বাবুয়ে খেলেছে ৫৪৬ ম্যাচ।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন