এশিয়া কাপের জন্য দল ঘোষণার সময় ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। তবে নির্ধারিত সময়ে দল ঘোষণা করনে বাংলাদেশ। চেয়েছিলেন বাড়তি সময়। সেটাও পেয়েছে বিসিবি। বাংলাদেশকে ১১ আগষ্টের মধ্যে দল ঘোষণার জন্য সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছিলো সে হিসেবে আজ শেষ দিন দল ঘোষণার। অথচ এশিয়া কাপের দল নিয়ে এখনো কাটেনি ধোঁয়াশা।

বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী সাকিব আল হাসানকে অধিনায়ক করে আজ দল ঘোষণা করবে বিসিবি।

আসলেই কি সাকিবকে বাংলাদেশ অধিনায়ক করবে? অধিনায়ক হওয়ার যোগ্যতা নেই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের তা কিন্তু না। বরং বর্তমান সময়ে অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে বেশি যোগ্য সাকিব আল হাসান। তবে বিপত্তিটা বাঁধিয়েছেন সাকিব নিজেই। বেটউইনারের সাথে নিজের চুক্তি বাতিল না করার ঘোষণা দেন তিনি। তার মতে এটি যেহেতু সংবাদভিত্তিক একটি ওয়েবসাইট, তাদের সঙ্গে চুক্তিতে কোনো সমস্যা দেখেন না সাকিব।

অন্যদিকে এই ইস্যুতে বিসিবিও রাজি না ছাড় দিতে। বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপন দেশের শীর্ষ স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম প্রথম আলোকে জানান, ❝ আগেই বলেছি, এটা মেনে নেব না। ব্যক্তিগতভাবে এ ব্যাপারে আমার জিরো টলারেন্স অবস্থান। এখন অন্যদের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেব।❞

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বিসিবি কর্তার কন্ঠেও একই সুর। ❝সাকিব বলেই সিদ্ধান্তটা অনেক বড়। কিন্তু দেশের আইনের কথা, ক্রিকেট বোর্ডের ভাবমূর্তির কথাও আমাদের ভাবতে হবে। এসবের ঊর্ধ্বে কেউ নয়। ও (সাকিব) যদি ওর সিদ্ধান্তে অটল থাকে, তাহলে আমাদের কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হবে। অন্য যারা আছে, তাদের নিয়েই এগোতে হবে❞

যদি সাকিবকে বাদ দিয়েই শেষ পর্যন্ত দল ঘোষণা করে বাংলাদেশ তাহলে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের কাঁধেই থাকবে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব।।

চোটের কারণে নেই লিটন ও সোহান, সিনিয়র ক্রিকেটার তামিমও নিয়েছেন সম্প্রতি অবসর। রিয়াদ নিজেই নিজের জাত চেনাতে পারছেন না এই ফরমেটে। এক কথায় অধিনায়ক কোটায় খেলে যাচ্ছেন। মুশফিক গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর খেলেনি কোনো টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। এমনিতে টি-টোয়েন্টিতে বেহাল দশা বাংলাদেশের। সাকিবের বাদ পড়াটা বাংলাদেশের জন্য কতটা দূঃসংবাদ বয়ে আনবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন