আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে সিনিয়র ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে দলে চেয়েছেন সাকিব আল হাসান। বিভিন্ন সূত্রে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

বাংলাদেশ ক্রিকেটে পাঁচজন সিনিয়র ক্রিকেটারদের ডাকা হয় পঞ্চপাণ্ডব। টি-টোয়েন্টি থেকে পঞ্চপাণ্ডবের তিনজনই নিয়েছেন অবসর। বাকি আছেন দুজন, সাকিব আল হাসান এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সাকিব দলের অধিনায়ক তাই নিশ্চিত ভাবে দলে থাকছেন তিনি। তবে দর্শক থেকে শুরু করে কোচিং স্টাফ ও বিসিবির অনেকেই রিয়াদকে দলে রাখতে চাইছেন না। কারণটাও অবশ্য যৌক্তিক। ব্যাট হাতে রিয়াদ বরাবরই ব্যর্থ। তাই তার জায়গায় নতুনদের সুযোগ দেওয়ার পক্ষে সিংহভাগ সমর্থন।

সাবেক টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দেশের জার্সিতে খেলেছেন ১২১ টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। ২৩.৫৭ গড়ে মোট করেছেন ২১২২ রান। স্ট্রাইক রেট ১১৭। সর্বোচ্চ ৬৪ রানে অপরাজিত। ফিফটি করেছেন মাত্র ছয়বার। বল হাতে নিয়েছেন ৩৮ টি উইকেট৷

শেষ দশ ইনিংসে ব্যাট হাতে করেছেন ১৭৬ রান, তবে একজন ফিনিশার হিসেবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১৭৬ রান করতে খেলেছেন ১৬৬ বল। তাতেই যত আপত্তি সকলের। তাছাড়াও শেষ দশ ইনিংসে নেই কোনো ফিফটি, সর্বোচ্চ ২৭ রান। গড় ১৭.৬ রান।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন একবার সাংবাদিকের বলেছিলেন সাকিব যখন অধিনায়ক থাকে তখন একাদশ সাকিবই নির্বাচন করে। সাকিব যখন চেয়েছেন রিয়াদকে তখন বিসিবি কিংবা নির্বাচক প্যানেল না চাইলেও হয়তো বিশ্বকাপের দলে থাকবেন রিয়াদ।

এশিয়া কাপে সাকিব আল হাসানের চাওয়াতে দলে গ্লাভস হাতে নিয়েছিলেন মুশফিক, ব্যাট হাতে ব্যর্থ মুশি উইকেটের পিছনেও ডুবিয়েছেন দলকে। এবার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কি উপহার দেয় দেশকে তা সময় বলে দিবে।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন