অবশেষে নতুন মৌসুমে গোলের দেখা পেলেন রোনালদো। গত মৌসুমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে একাই টানা, রোনালদোকে নতুন মৌসুমে নতুন কোচ বেশিরভাগ ম্যাচের শুরুর একাদশে রাখেননি, বদলি নামা রোনালদোও পারেনি আশানুরূপ পারফরম্যান্স করতে। তবে ইউরোপা লিগে গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে এসে শেরিফের বিপক্ষে গোলের খাতা খুললেন এই পর্তুগিজ তারকা।

ইউরোপা লিগে রোনালদোর অভিষেক হওয়া ম্যাচে বির্তকিত রেফরিংয়ের শিকার হয়ে হেরেছিলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তবে আজ প্রতিযোগিতাটিতে গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে জয় পেয়েছে ইউনাইটেড, নতুন মৌসুমে ও ইউরোপা লিগে নিজের প্রথম গোলের স্বাদ পেয়েছেন রোনালদো।

পুরো ম্যাচে বল দখলে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করে রোনালদোর দল। আক্রমনে এগিয়ে থাকলেও শেরিফ পারেনি উল্লেখযোগ্য তেমন সুযোগ তৈরি করতে৷ অন্যদিকে ম্যাচের মাত্র ১৭ তম মিনিটে জর্ডান সানচোর গোলে লিড নেয় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ৩৩ তম মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়ে নষ্ট করেন রোনালদো।

ম্যাচের ৩৯তম মিনিটে রোনালদোর পায়ে ধরা দেয় গোল নামক সোনার হরিণটি৷ প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে ম্যানইউ মিডফিল্ডার ম্যাকটমিনে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি উপহার পেয়ে যায় টেন হাগের দল। গোল থেকে দূরে থাকা রোনালদো স্পট কিক থেকে বল জালে জড়াতে ভুল করলেন না। ক্লাব ক্যারিয়ারে নিজের ৬৯৯ তম গোলে দ্বীগুন করেন গোলের ব্যবধান।

দ্বিতীয়ার্ধে তৃতীয় গোলের সন্ধানে নামা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের আক্রমনভাগ হতাশ করেছে বারবার। মাত্র একবার লক্ষ্যে শট রাখতে পারে টেন হাগের দল। ম্যাচের শুরুর একাদশে না থাকলেও বিরতির পর মাঠে নামেন ক্যাসেমিরো।

দুই ম্যাচের দুই জয়ে গ্রুপ টেবিলের শীর্ষে আছে রিয়াল সোসিয়াদ। এক জয় ও এক হারে দুইয়ে ইউনাইটেড। সমান জয় ও হারে তিনে শেরিফ।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন