ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কিংবদন্তি কোচ অ্যালেক্স ফার্গুসনের অবসরের পর থেকে ক্রমশই অস্তীয়মান হতে থাকে ক্লাবটির সোনালী সময়ের সূর্যটি।

ফার্গুসনের বিদায়র  পরবর্তী সময়ে একের পর এক কোচ এসেছে এবং বিদায় নিয়েছে তবে সাফল্য নামের সোনার হরিণটি নাগাল পায়নি কেউ।

মরুভূমিতে তৃষ্ণাত পথিকের ন্যায় কাতরাতে থাকা ইউনাইটেডের সমর্থকদের মনে আশার আলো জ্বালিয়ে গত মৌসুমের জুভেন্টাস থেকে ঘরের ছেলে ক্রিষ্টিয়ানো রোনালদো ফিরেন ঘরে। ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে জ্বলজ্বল করতে থাকা রোনালদো নামক তারাটি শেষ পর্যন্ত ঢাকা পড়ে দলের নাজুক পারফরম্যান্সের মেঘে।

নতুন মৌসুমে নতুন কোচ এরিক টেন হাগের অধীনেও অবনতির পথে পা বাড়াচ্ছে ক্লাবটি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলতে না পারার ক্ষোভে দল ছাড়তে মরিয়া স্বয়ং রোনালদো, সবমিলিয়ে ম্যানইউ সমর্থক কিংবা ক্লাব কতৃপক্ষ সকলের কাছে সময়টা কাটছে যেন এক দুঃস্বপ্নের মতো।

নতুন মৌসুমে দল ছাড়ার তালিকাটি বড় হলেও তেমন একটা বড় সাইনিং করাতে পারেনি এখনও ইংলিশ ক্লাবটি। পল পগবা, জেসে লিঙ্গার্ড, নেমানজা ম্যাটিচ, হুয়ান মাতা ও এডিনসন কাভানির মতো খেলোয়াড়দের হারিয়ে ম্যানইউ চেয়েছিলো বার্সেলোনা থেকে ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংকে উড়িয়ে আনতে, তবে সেখানেও এখনো সফলতার মুখ দেখেনি প্রিমিয়ার লিগের সবচেয়ে সফল দলটি।

এত সব খারাপ সময় ও খারাপ খবরের মাঝে ম্যানইউ কতৃপক্ষ সমর্থকদের এবার দেখাচ্ছে নতুন স্বপ্ন। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে প্রায় সব শিরোপা জেতা ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ক্যাসেমিরোকে নাকি দলে ভেড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ক্লাবটি।

২০১৩ সালে ব্রাজিলিয়ান ক্লাব সাও পাওলো থেকে ধারে ক্যাসেমিরোকে নিয়ে আসে রিয়াল মাদ্রিদ। জৌসে মরিনহো ছিলেন সেসময়ের রিয়াল কোচ। এরপর ক্যাসেমিরোকে একেবারে কিনে নেয় রিয়াল। মরিনহোর পর অনেকগুলো কোচ বদলালেও বদলায়নি দলে ক্যাসেমিরোর গুরুত্ব। প্রতিপক্ষকে নিয়ে বর্তমান কোচ আনচেলত্তির করা পরিকল্পনায় ক্যাসেমিরো থাকেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায়। তাই এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারকে দলে ভেড়ানোটা অনেকটা ম্যানচেস্টারে ইউনাইটেডের জন্য দিবাস্বপ্নের মতো বলা যায়।

তবে বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী যেহেতু রিয়ালে ক্যাসেমিরোর অভাব পূরণ করার মতো কয়েকজন খেলোয়াড় আছেন বর্তমানে তাই রিয়াল মাদ্রিদ ভালো প্রস্তাব পেলে হয়তো ছেড়েও দিতে পারে এই ব্রাজিলিয়ান ট্যাঙ্ককে।

ক্যাসেমিরোকে দলে নিতে চাই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এমন খবর রটার পর থেকে সোশাল মিডিয়ায় ক্লাবটিকে নিয়ে হাসিতামাশায় মেতেছে ফুটবল ভক্তরা৷

কেউ কেউ লিখছেন, “ক্যাসেমিরো নাকি দ্রুত ইংরেজি শিখতে সাত দিনের কোর্স করছে, যাতে ইউনাইটেডের প্রস্তাব সে প্রত্যাখান করতে পারে।”

আবার কেউবা লিখছেন বামন হয়ে ম্যানইউ নাকি চাঁদ (ক্যাসেমিরো) কে ছুঁতে চায়।

প্রিমিয়ার লিগে পয়েন্ট টেবিলের তলানীতে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কি আসলেই পারবে রিয়াল মাদ্রিদ ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারকে দলে নিতে? জানতে হলে অপেক্ষা করতে হবে দলবদলের শেষ মূহুর্ত পর্যন্ত।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন