হুয়াংহো নদীকে বলা হয় চীনের দূঃখ, ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে যদি চীন ভাবেন তবে তাদের হুয়াংহো হলো দলটির অধিনায়ক হ্যারি ম্যাগুয়েরো।

ভাবতে পারেন হঠাৎ করে হুয়াংহো নদী আর ম্যাগুয়েরোর তুলনা কেন করতে গেলাম। উত্তরটা সহজ, হুয়াংহো যেমন চীনকে বন্যায় ভাসিয়ে দূঃখে ফেলে, এই ইংলিশ ডিফেন্ডারও প্রায়ই তার বাচ্চাসুলভ ভুলে কিংবা আত্মগাতী গোলে দলকে ডুবান লজ্জায়।

গত মৌসুমে পয়েন্ট টেবিলের ছয়ে থেকে লিগ শেষ করা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নতুন মৌসুমে উঠেপড়ে লেগেছে নতুন করে দল গোছানোর কাজে। কোচ বদলানোর পাশাপাশি ইতিমধ্যে নয় জন ফুটবলারও ছেড়ে দিয়েছে দলটি। রিয়াল মাদ্রিদ থেকে উড়িয়ে এনেছেন ব্রাজিলিয়ান ট্যাঙ্ক খ্যাত ক্যাসেমিরোকে। সবক্ষেত্রে যখন পরিবর্তনের ছোঁয়া গেলেছে তাই ম্যাগুয়েরো কেন তা থেকে বাদ যাবেন, যেকোনো মূল্যে ইউনাইটেডর দূঃখের অন্যতম কারণ হওয়া এই ইংলিশ ডিফেন্ডারকে দল থেকে বাদ দেওয়ার জন্য ক্লাবটির সমর্থকেরা সবসময় দাবি জানিয়ে এসেছেন।

ক্যাসেমিরোকে দলে নেওয়ার পর আয়াক্স থেকে আরেক ব্রাজিলিয়ান তরুণ তারকা অ্যান্তেনিওকে দলে ভেড়াতে প্রস্তুতি নিচ্ছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সাথে চেলসি থেকে দলে আনতে চেষ্টা করছে পুলিচিচকেও। সেক্ষেত্রে অধিনায়ক ম্যাগুয়েরোকে চেলসিতে দিয়ে দেওয়ারও নাকি পরিকল্পনা করছে ম্যানইউ ম্যানেজম্যান্ট।

ম্যানইউ থেকে ম্যাগুয়েরোর চেলসিতে যোগ দেওয়ার গুঞ্জনে বেশ উচ্ছাসিত দলটির সমর্থকেরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইংলিশ এই ডিফেন্ডারকে নিয়ে এক প্রকার প্রকার হাস্যরসের বন্যা বয়ে দিচ্ছে লাল শয়তানের সমর্থক থেকে শুভাকাঙ্ক্ষীরা।

ম্যাগুয়েরোর দল ছাড়ার গুঞ্জনে এক ভক্ত লিখেন, ❝ওকে কিনুন, প্রয়োজনে বিনামূল্যে নিয়ে নিন, তবুও বিদায় করুন ওল্ড ট্র্যাফোর্ড থেকে।❞

আরেক ভক্ত মজার করার ক্ষেত্রে ছড়িয়ে গেলেন তাকে। লিখলেন ❝নো রির্টান পলিসি❞ অর্থাৎ ম্যাগুয়েরো ফেরতযোগ্য নয়।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন