মঙ্গলবার আইসিসি একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে ক্রিকেটের কিছু নিয়ম বদল করতে চলেছে তারা। আগামী ১ অক্টোবর থেকে নিয়মগুলো বাস্তবায়ন করতে চলেছে আইসিসি।

তাদের নিয়ম গুলোর মধ্যে রয়েছে:

১. ক্যাচ আউট হলে দুই ব্যাটসম্যানের মধ্যে পান্ত বদল হতে পারবে না। এতদিন যাবত ক্রিকেটে নিয়ম ছিল ক্যাচ উঠলে যদি ক্যাচ ধরার আগে দুই ব্যাটসম্যান তাদের মধ্যে ক্রিজ বদল করে তাহলে পরবর্তী বলটি পুরাতন ব্যাটসম্যান মোকাবেলা করবে। কিন্তু এই নিয়মটি আর থাকছে না এখন থেকে নতুন ব্যাটসম্যানকে পরবর্তী বল মোকাবেলা করতে হবে।

২. লালা ব্যবহার চিরতরে নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। করোনা ভাইরাসের আগে বলে লালা ব্যবহার করা হতো সিম এবং সুইম বাড়ানোর জন্য কিন্তু নিয়মটি করোনা ভাইরাসের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল আইসিসি। এবার এটিকে চিরতরেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করলো তারা।

৩. নতুন ব্যাটারদের ক্রিজে আসার সময়ে পরিবর্তন এনেছে আইসিসি। আগে টেস্টে এবং ওয়ানডেতে ব্যাটসম্যান আউট হলে নতুন ব্যাটসম্যানকে ৩ মিনিটে ক্রিজে আসতে হতো। কিন্তু এটাকে কমিয়ে এখন ২ মিনিটে আনা হয়েছে। টি-টোয়েন্টিতে আগের মতই ৯০ সেকেন্ডে নতুন ব্যাটসম্যানকে ক্রিজে আসতে হবে।

৪. বল করার সময় কোন ফিল্ডার তার জায়গা পরিবর্তন করতে পারবে না। যদি কোন ফিল্ডার জায়গা পরিবর্তন করেন তাহলে প্রতিপক্ষকে পাঁচ রান পেনাল্টি দেয়া হবে এবং বলটিকে ডেথ বল হিসাবে গণ্য করা হবে।

৫. এতদিন মানকাডিং আউট নিয়ে চলেছে অনেক আলোচনা সমালোচনা। তবে এবার এটিকে সাধারণ রান আউট হিসাবেই বিবেচনায় এনেছে আইসিসি। বোলার বল করার সময় যদি অপর প্রান্তের ব্যাটসম্যান ক্রিজের বাইরে যান তখন যদি বোলার স্ট্যাম্প ভেঙে দেন তাহলে এটাকে স্বাভাবিক রান আউট হিসেবে বিবেচনা করবে আম্পায়ার।

৬. টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে চালু হওয়া ‘ইন ম্যাচ’ পেনাল্টি ওয়ানডে ক্রিকেটে চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ফিল্ডার টিমকে একটি নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেয়া হয় তাদের ইনিংস শেষ করার জন্য। কিন্তু ইনিংস শেষ হওয়ার আগেই যদি সময় অতিবাহিত হয়ে যায় তাহলে পেনাল্টি হিসাবে বাকি যে সময়টুকু খেলা চলবে সেই সময়টুকু ৩০ গজ বৃত্তের বাইরে একজন খেলোয়ারকে কম রাখতে হবে ফিল্ডিং দলকে। এই একই নিয়ম ওয়ানডে ক্রিকেটেও চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন