নতুন কোচ, নতুন ফুটবলার অথচ নতুন মৌসুমেও ইউনাইটেড ঘুরপাক খাচ্ছিলো পুরনো ব্যর্থতায়। গত আসরে লিভারপুলের কাছে ৫-০ ও ৪-০ গোলের ব্যবধানে হারা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড গতরাতে তাদের বিপক্ষে নামার আগে স্বাভাবিকভাবেই ওল্ড ট্রাফোর্ডের সমর্থকেরা জয়ের স্বপ্ন বুনতে সাহস পাচ্ছিলো না। দলটির মালিকপক্ষের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ কর্মসূচিও করেন তারা।

গত আসরের সেরা গোলদাতা ক্রিষ্টিয়ানো রোনালাদো ও অধিনায়ক ম্যাগুয়েরোকে বেঞ্চড করে লিভারপুলের বিপক্ষে খেলতে নামা এক অন্যরকম ইউনাইটেডকে দেখা গেলো। ঘরের মাঠে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের ২-১ গোলে হারিয়ে লিগের প্রথম জয়ের স্বাদ পায় লিভারপুল।

পুরো ম্যাচে বল দখল ও আক্রমনভাগের সব ক্ষেত্রে একক আধিপত্য বিস্তার করে সালাহারা৷ তবে ভাগ্যদেবী এদিন পাশে ছিলো না অলরেডদের। হতে হতেও হলো না কয়েকটি গোল।

নতুন শুরু করা ইউনাইটেড ঘরের মাঠে এগিয়ে যেতে পারতো তবে ডি বক্সে ব্রুনো ফার্নান্দেজের পাস থেকে অ‍্যান্থনি এলাঙ্গা কোনাকুনি শট নিলে তা এলিসনকে পরাস্ত করলেও বাঁধা পায় গোলপোস্টে।

১৬তম মিনিটে আর হতাশ করেননি স্যানচো, বাঁ থেকে এলাঙ্গার পাস ডি-বক্সে ঠাণ্ডা মাথায় নিয়ন্ত্রণে নেন এই তরুণ ইংলিশ ফরওয়ার্ড। সামনে প্রতিপক্ষের মিডফিল্ডার জেমস মিলনার ছুটে আসতে দেখে শট নিতে গিয়ে নেননি স্যানচো। সময় নিয়ে দ্বিতীয়বারে প্লেসিং শটে বল জালে পাঠিয়ে ঘরের মাঠে সমর্থকের আনন্দে ভাসান।

ভাগ্যদেবী যে লিভারপুলের সাথে ছিলো না তা স্পষ্ট হয় ৪১ তম মিনিটে ঘটনায়। মিনিটে গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিল তারা; কোনোমতে রক্ষা পায় ইউনাইনটেড। মিলনারের কোনাকুনি হেড গোলমুখে রক্ষা করতে গিয়ে নিজেদের জালেই জড়াতে বসেছিলেন ফার্নান্দেজ তবে গোললাইনে দাঁড়ানো আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার লিসান্দ্রো মার্তিনেসের গায়ে লেগে কিভাবে যেন বল জালে ঢুকে নি।

বিরতির পর লিভারপুল ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালানোর আগেই মিনিটে প্রতি-আক্রমণে তাদের স্তব্ধ করে দেন র‌্যাশফোর্ড। ডি বক্স থেকে জোরালো শটে বল জালে জড়িয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন তিনি।

দুই মিনিট পর স্কোরলাইন ৩-০ হতে পারতো। তবে র‌্যাশফোর্ডের নেওয়া কোনাকুনি শট কর্ণারের বিনিময়ে রক্ষা করেন এলিসন।

৮১তম গোল শোধ করে অলরেডদের লড়াইয়ে ফেরার আশা জাগান সালাহ। ট্রেন্ট-অ্যালেকজ্যান্ডার আর্নল্ডের কর্নারে জোরাল শট নেন ফাবিও কারবাইয়ো, ম্যানইউ গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ফিরতি বল পেয়ে নিচু হেডে জাল খুঁজে নেন সালাহ।

তবে আভাস দিয়েও ম্যাচে ফিরতে পারেনি সালাহ-ফিরিমিনোরা। রেফারি শেষ বাঁশি বাজালে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে জয় নিশ্চিত হয় ৮৬তম মিনিটে বদলি নামা রোনালদোদের।

এই জয়ে ৩ পয়েন্ট পেয়ে এক লাফে পয়েন্ট টেবিলে ১৯ থেকে ১৪ নম্বরে উঠেছে ইউনাইটেড। লিভারপুল ২ পয়েন্ট নিয়ে নেমে গেছে ১৬ নম্বরে।

ম্যাচ শুরুর আগে ইউনাইটেড পরিচয় করিয়ে দেয় রিয়াল মাদ্রিদ থেকে দলে টানা ক্যাসেমিরোকে। আগামী সপ্তাহে পরের ম্যাচে সাউথ্যাম্পটনের মাঠে তাদের বিপক্ষে অভিষেক হতে পারে এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্সিভ-মিডফিল্ডারের।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন