বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে বিশ্রাম দিয়ে জিম্বাবুয়ে সফরের দল ঘোষণা করে বিসিবি। যেখানে নতুন অধিনায়কের দায়িত্ব দেওয়া হয় সোহানের কাঁধে।

অধিনায়ক সোহান প্রথমবারের মতো গণমাধ্যমের সামনে হাজির হয়ে জানালেন দল থেকে তার চাওয়া পাওয়ার কথা। নতুন অধিনায়ক সোহান চান দল হিসেবে ভালো খেলতে, এবং দলের মধ্যে এমন মানসিকতা তৈরি করতে যাতে একজনের সাফল্য অন্যজন উপভোগ করে।

“ঘরোয়া ক্রিকেটে যখনই অধিনায়কত্ব করেছি, সব সময় আমার মাথায় একটাই চিন্তা থাকে, সব সময় চাই যেন দল হিসেবে খেলতে পারি। আমি চাই, জিম্বাবুয়েতেও যেন দল হিসেবে খেলতে পারি এবং মূল ব‍্যাপার হলো, দলের পরিবেশ যেন ভালো থাকে। সবাই তো প্রতিদিন পারফর্ম করবে না, আমরা দলের সদস‍্য যারা থাকব, একজনের সাফল‍্যে যেন আরেকজন উপভোগ করি। আমার কাছে মনে হয় এই সংস্কৃতিটা ও দল হিসেবে খেলাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।”

ওয়ানডের চাইতে বাকি দুই ফরমেটে বাংলাদেশ পিছিয়ে সে বিষয়টিও অকপটে স্বীকার করেন সোহান।

“টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতে আমরা ওয়ানডের তুলনায় পিছিয়ে আছি। তো আমার কাছে মনে হয়, উন্নতি করাটাই খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সেই চেষ্টা করছি। আমার কাছে মনে হয়, আউটকামের চেয়ে প্রসেস খুব গুরুত্বপূর্ণ। তো আমরা সেই চেষ্টাই করব।”

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ব্যাটিং নিয়ে প্রায় সব সময় সমালোচনা হয়। তবে সোহানের মতে ভয়হীন ব্যাটিং দলকে ইতিবাচক ফল এনে দিতে পারে।

“আমার মনে হয়, ভীতিহীন ক্রিকেট খেলাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। অবশ‍্যই চেষ্টা থাকবে, সেটা যেন করতে পারি। ফল নিয়ে আগে থেকে চিন্তা করলে অনেক সময় প্রক্রিয়া ঠিক থাকে না। প্রক্রিয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ। ফল নিয়ে খুব বেশি কিছু চিন্তা করছি না। ভীতিহীন ক্রিকেট খেললে ইতিবাচক কিছু হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।”“আপনি যখন ফিয়ারলেস থাকবেন, তখন অনেক অপশন বেরিয়ে আসবে। যখন মনের ভেতর কিছু নিয়ে ভয় কাজ করবে তখন অনেক কিছুই নেগেটিভ দিকে যায়। ভীতিহীন ক্রিকেট খেলা খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে”

 

আগামী ৩০ জুলাই হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে অধিনায়ক হিসেবে শুরু হবে সোহানের নতুন যাত্রা। অধিনায়ক সোহানের প্রত্যাশা সবাই নিজ জায়গা থেকে সেরাটা দিয়ে খেলবে।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন