টেস্ট ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত অনেক ক্রিকেট বিশ্লেষক ও সাবেক ক্রিকেটাররা। এবার তাদের সাথে যুক্ত হলেন পাকিস্তানের বর্তমান কোচ সাকলাইন মুশতাক। সাকলাইন মুশতাক মনে করেন টেস্ট ক্রিকেটের স্থায়িত্বকাল দুই দশকের বেশি হবে না । খুব শীঘ্রই টি-টোয়েন্টির মতো ছোট ছোট ফরম্যোট গুলো ক্রিকেটে আরো বাড়বে ।

এর মূল কারণ হিসেবে তিনি চিহ্নিত করেছেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বড় ফরম্যোট গুলো হতে ক্রিকেটাররা ধীরে ধীরে সরে দাঁড়াচ্ছেন। এটি করার পেছনে খেলোয়ারদের মূল কারণ হলো বিভিন্ন দেশে ফ্রাঞ্চাইজি লিগে তাদের প্রাধান্য ও খেলার সুযোগ পাওয়া ।

ট্রেন্ট বোল্ট নিউজিল্যান্ডের সাথে কেন্দ্রীয় চুক্তি বাতিল করেছে , কুইন্টন ডি কক টেস্ট থেকে অবসর নিয়েছেন । বেন স্টোকস ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছে। এমন পরিস্থিতির কারণে ক্রিকেটের বড় ফরম্যোট গুলো হুমকির মুখে পড়ছে।

২০০৮ সালে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এর মাধ্যমে ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি লিগের সূচনা শুরু হয় । এরপর একে একে ক্রিকেটের বড় দেশ গুলো নিজেদের ফ্রাঞ্চাইজিভিত্তিক লীগ টুর্নামেন্ট শুরু করে দেয়।

সাকলাইন মুশতাক একটি সাক্ষাৎকারে বলেন,“আমার মনে হয় টেস্ট ক্রিকেটও আগামী ১৫-২০ বছরে মারা যাবে। তরুণ প্রজন্ম এবং তাদের যে মানসিকতা আছে, তাতে তারা স্বাভাবিকভাবেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলতে চাইবে। এমনকি আর্থিক দিক এবং সময় বিবেচনায় নিয়েও, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট বেশিরভাগ বাক্সে টিক দেয় ।

আইসিসি এবং ক্রিকেট বোর্ডগুলোকে টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচিয়ে রাখার উপায় খুঁজতে বলেছেন তিনি। টেস্ট ক্রিকেটই জীবন দক্ষতা, কৌশল, ধৈর্য, সিদ্ধান্ত গ্রহণে বড় ভূমিকা পালন করে।

তিনি এই সাথে আরো ও যোগ করেছেন,আপনি যদি জীবন দক্ষতা চান এবং ক্রিকেটের বিশুদ্ধতম ফরম্যোটি খেলতে চান তবে সেটি টেস্ট ক্রিকেট ।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন