ইনিংসের শেষ বলে দরকার একটি চার। না, ম্যাচ জিততে নয়, বরং বাউন্ডারিটা দরকার ছিলো ছয় বছর পর জাতীয় দলে ফেরা আফ্রিকান ব্যাটসম্যান রাইলি রুশোর, টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি করতে। তবে শেষ বলে বাউন্ডারি হাঁকানো হলো না রুশোর। ব্যাটে বলে সংযোগ না হওয়ায় কোনো রানও পেলেন না শেষ বলে।

তবে তার আগে রুশো খেলেন এক ঝড়ো ইনিংস। ক্রিকেট বিশ্বকে দেখিয়ে দিলেন এভাবেও ফিরে আসা যায়।

জিতে সিরিজ নিশ্চিত করতে নামা ইংল্যান্ডরা দ্বিতীয় ম্যাচে হারলো ৫৮ রানের বড় ব্যবধানে।

কার্ডিফে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে রাইলি রুশোর ৫৫ বলে ৯৬ রানে অপরাজিত ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২০৭ রান তুলে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে আগের ম্যাচে আফ্রিকান বোলারদের তুলোধুনো করা ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা পারেনি পুরো ২০ ওভার খেলতে। ইনিংসের ২০ বল বাকি থাকতেই ১৪৯ রানে গুটিয়ে যায় তারা।

 

আগের ম্যাচ রানের পাহাড় গড়া ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানরা ২০৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ব্যাট চালিয়ে খেলেছেন ঠিকই তবে উইকেটে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেনি। ইংলিশ ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো ২১ বলে ৩০, জস বাটলার ১৪ বলে ২৯, মঈন আলী ১৭ বলে ২৮ রানের ইনিংস খেললেও তাতে কাজের কাজ হয়নি একটুও।

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে তিনটি করে উইকেট নেন তাবরাইজ শামসি ও আন্দিল ফেলুকায়ো। এছাড়া লুঙ্গি এনগিডি ২.৪ ওভারে মাত্র ১১ রান খরচায় নেন ২ উইকেট।

 

ছয় বছর পর জাতীয় দলের হয়ে খেলতে নামা রুশোর ব্যাট প্রথম ম্যাচে না হাঁসালেও দ্বিতীয় ম্যাচে দূর্দান্ত ব্যাটিংয়ের কল্যাণে জিতে নেন ম্যাচ সেরার পুরস্কারও।

বর্তমানে ১-১ সমতায় আছে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। আগামী ৩১ জুলাই রোববার সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ খেলবে দু’দল।


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন