“ওয়ানডে ম্যাচ নয় বলে জিততে পারলো না বাংলাদেশ” না এমনটি কেউ অবশ্য বলেনি, তবে লিখলে ক্ষতি কি? ওয়ানডে ছাড়া বাকি দুই ফরমেটে বাংলাদেশ দল যেন জিততেই ভুলে গেলো। টেস্টে বেহাল দশার মতো করুণ অবস্থা টি-টোয়েন্টি ফরমেটেও। সর্বশেষ ৮ ম‍্যাচে জয় এসেছে মাত্র একটি। দুটি সিরিজে হতে হয়েছে হোয়াইটওয়াশড।

তাই জিম্বাবুয়ে সফরে অভিজ্ঞদের বিশ্রাম দিয়ে তরুণদের নিয়ে বাংলাদেশ স্বপ্ন দেখেছিলো নতুন শুরুর। তবে বাংলাদেশের সেই আশায় জল ঢেলে দেন জিম্বাবুয়ের অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার সিকান্দার রাজা। সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের বোলারদের রীতিমতো তুলোধুনো করে খেললেন ২৬ বলে ৬৫ রানের এক খুনে ইনিংস।

অধিনায়ক হিসেবে প্রথম টসে হারলেন সোহান, টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক। শুধু টস নয়, শেষ পর্যন্ত ম্যাচও হারলো বাংলাদেশ।

প্রথম ১০ ওভারে জিম্বাবুয়ে ২ উইকেটে করেছিল ৭৪ রান। তবে শেষের ১০ ওভারে ১৩১ রান তুলে সফরকারীদের সামনে ২০৬ রানের পাহাড় সমান লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় জিম্বাবুয়ে ব্যাটাররা৷ গত বছর এই মাঠে ১৯৩ রান তাড়া করে ম্যাচ জেতা বাংলাদেশ তাই হাল ছাড়েনি শেষ পর্যন্ত। তবে অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহানের ২৬ বলে করা ৪৬ রান বাংলাদেশকে ম্যাচ জেতাতে পারেনি। হারের ব্যবধান কমিয়ে মাত্র।

২০৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে লিটন কুমার দাসের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লেতে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ৬০ রান তুলে বাংলাদেশ। তবে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে বাংলাদেশ সংগ্রহ করতে পেরেছে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৮ রান। এতে করে তিন ম্যাচের সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে জিতলো ১৭ রানে।

আগামী রোববার একই মাঠে দ্বিতীয় ম্যাচে সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ২০৫/৩ (চাকাভা ৮, আরভিন ২১, মাধেভেরে ৬৭ (আহত অবসর), উইলিয়ামস ৩৩, রাজা ৬৫*, তাসকিন ৪-০-৪২-০, নাসুম ৪-০-৩৮-০, মুস্তাফিজ ৪-০-৫০-২, মোসাদ্দেক ৩-০-২১-১, শরিফুল ৪-০-৪৫-০, আফিফ ১-০-৬-০)

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৮৮/৬ (মুনিম ৪, লিটন ৩২, এনামুল ২৬, শান্ত ৩৭, আফিফ ১০, সোহান ৪২*, মোসাদ্দেক ১৩, এনগারাভা ৪-০-৪৩-১. মাসাকাদজা ৩-০-২৩-১, চিভাঙ্গা ৩-০-২৮-০, উইলিয়ামস ২-০-৭-০, রাজা ৩-০-৩০-১, জঙ্গুয়ে ৪-০-৩৪-২, মাধেভেরে ১-০-১২-০)

ম্যাচ সেরাঃ সিকান্দার রাজা


সর্বশেষ খবর পেতে আমাদের Google News ফিডটি ফলো করুন