ক্রিকেট

বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের তালিকায় ৯ম স্থানে থেকেও প্রথমে সাকিব

desk

৪ জানুয়ারী ২০২৩, দুপুর ২:২৩ সময়

[ midfield.jpg ]

১৯৭৫ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত ১২ টি ওয়ানডে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ১২ টি ওয়ানডে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকের তালিকায় প্রথম স্থানে আছেন ভারতের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকার। সেরা ১০ জনের মধ্যে নবম তম স্থানে আছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। সেরা ১০ জন রান সংগ্রহকরা হলেন।

১. ভারতের শচীন টেন্ডুলকার ৬ টি বিশ্বকাপ খেলে করছেন ২২৭৮ রান।

২. অস্ট্রেলিয়ার রিকি পন্টিং ৫ টি বিশ্বকাপ খেলে করেছেন ১৭৪৩ রান।

৩. শ্রীলংকার কুমার সাঙ্গাকারা ৪ টি বিশ্বকাপ খেলে করেছেন ১৫৩২ রান।

৪. ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্রায়ান লারা ৫ টি বিশ্বকাপ খেলে করেছেন ১২২৫ রান।

৫. দক্ষিণ আফ্রিকার এবিডি ভিলিয়ার্স ৩ টি বিশ্বকাপ খেলে করেছেন ১২০৭ রান।

৬. ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল ৫ টি বিশ্বকাপ খেলে‌ করেছেন ১১৮৬ রান।

৭. শ্রীলংকার সানাথ জয়সুরিয়া ৫ টি বিশ্বকাপ খেলে করেছেন ১১৬৫ রান।

৮. দক্ষিণ আফ্রিকার জ্যাক ক্যালিস ৫ টি বিশ্বকাপ খেলে করছেন ১১৪৮ রান।

৯. বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান ৪ টি বিশ্বকাপ খেলে করেছেন ১১৪৬ রান।

১০. শ্রীলংকার তিলকরত্নে দিলশান ৩ টি বিশ্বকাপ খেলে করছেন ১১১২ রান।

এই তালিকায় ১০ জনের মধ্যে ৯ জন খেলোয়াড় অবসর নিয়ে নিয়েছেন। বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান একমাত্র খেলোয়াড় যিনি খেলা চালিয়ে যাচ্ছেন। চতুর্থ স্থানে থাকা ব্রায়ান লারার সঙ্গে সাকিবের রানের তফাৎ শুধুমাত্র ৭৯ রান। লারার রেকর্ডটি ভাঙ্গা সাকিবের জন্য খুব কঠিন হবে না। কারণ ২০২৩ বিশ্বকাপ সাকিব খেলবেন এটা নিশ্চিত।

তৃতীয় স্থানে থাকা কুমার সাঙ্গাকারার সঙ্গে সাকিবের রানের তফাৎ ৩৮৬।‌ সাঙ্গাকারার রেকর্ডটি ভাঙ্গতে সাকিবকে যথেষ্ট ভালো খেলতে হবে। দ্বিতীয় স্থান থাকা পন্টিংয়ের সঙ্গে রানের তফাৎ অনেকটাই বেশি ৫৯৭ রানের। তবুও যদি সাকিব ২০১৯ সালের মত পারফরম্যান্স ২০২৩ সালে দেখাতে পারেন তাহলে রেকর্ডটি ভেঙে ফেলতে পারেন তিনি।

শচীন টেন্ডুলকারের সঙ্গে সাকিবের রানের ব্যবধান যথেষ্ট বেশি। সাকিবকে এই রেকর্ডটি ভাঙতে হলে ২০২৭ বিশ্বকাপ পর্যন্ত খেলতে হবে এবং সেখানেও ভালো পারফরম্যান্স করতে হবে। এখনও সাকিব অবসরের সিদ্ধান্তর কথা কাউকে জানায়নি। তিনি বলেছেন, "যতদিন আমি খেলা চালিয়ে যেতে পারবো বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করব। নিজেকে যেদিন বোঝা মনে হবে সেদিন অবসরের সিদ্ধান্ত নেব।"

সেরা ১০ জন রান সংগ্রহকের মধ্যে জ্যাক ক্যালিস ও সাকিব বাদে সবাই ছিলেন নিজেদের সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। তবে সাকিব বলের মাধ্যমে ও বিশ্বকাপে আলো ছড়িয়েছেন। এখানে সাকিব বাকি সকলের থেকে ভিন্ন। যদি সাকিব নিজের ক্যারিয়ার শেষে সেরা তিন রান সংগ্রহকের তালিকায় থাকতে পারেন তাহলে বিশ্বমঞ্চে তার নাম আরো উপরের দিকে রাখা হবে।

//